রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২২




‘খালেদা জিয়া অমর হোক’ লেখায় কর্মীদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ, মান্নানদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি

নারায়ণগঞ্জ প্রতিদিনঃ 

জীবিত থাকার পরেও বেগম খালেদা জিয়ার নামের পাশে ‘অমর হোক’ লেখায় সোনারগাঁ থানা বিএনপির আহ্বায়ক আজহারুল ইসলাম মান্নান ও সদস্য সচিব মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বাধীন কমিটি বিলুপ্ত করার দাবি তুলেছে বিএনপির একটি অংশ। একই সাথে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেওয়ার দাবি তুলেছেন।
গত ১৮ ফেব্রুয়ারি সোনারগাঁয়ের ১০টি ইউনিয়নে পৃথক ১০টি আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সোনারগাঁ থানা শাখা।

সোনারগাঁ থানা বিএনপির আহ্বায়ক আজহারুল ইসলাম মান্নান ও সদস্য সচিব মোশাররফ হোসেনের স্বাক্ষরিত ওই কমিটি গুলোর তালিকার উপরের অংশে লেখা হয়েছে ‘খালেদা জিয়া অমর হোক’।

দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া জীবিত থাকার পরেও ‘অমর হোক’ শব্দটি লেখায় রক্তক্ষরণ হয়েছে নেতাকর্মীদের হৃদয়ে।

আজহারুল ইসলাম মান্নান ও মোশাররফ হোসেনের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে জেলা বিএনপির কমিটির সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক ও সোনারগাঁ থানার আহ্বায়ক কমিটির সদস্য এডভোকেট আব্দুর রহিম জানান, বেগম খালেদা জিয়া দুই বারের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন, সাবেক রাষ্ট্র নায়কের স্ত্রী। উনাকে বাংলাদেশের মানুষ সম্মান করে গণতন্ত্রের মা বলে। বর্তমানে উনি অসুস্থ্য, এমন একজন মানুষ সর্ম্পকে দায়িত্বশীল পদে থেকেও কি করে ভূল করে, আমি বুঝি না। এই কমিটির কার্যক্রমের কোন যৌক্তিকতা নাই, এই কমিটি বাতিল চাই।

সোনারগাঁ থানা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য রকিব হাসান জানান, সোনারগাঁ একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান। এমন একটি স্থানে অযোগ্য ব্যক্তির নেতৃত্বে কমিটি থাকার কোন মানেই হয় না। আমি এই কমিটি বিলুপ্ত করার দাবি জানাচ্ছি।

নতুন করে মোগড়াপাড়া ইউনিয়ন কমিটিতে স্থান পাওয়া সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মো. আতাউর রহমান জানান, বেগম খালেদা জিয়া জীবিত থাকার পরেও যে ব্যক্তিরা তাঁর নামের পাশে ‘অমর হোক’ লেখেন। আমি সেই ব্যক্তিদের দেওয়া কমিটিতে থাকবো না। আমি খুব শীর্ঘ্রই কমিটি বর্জন করবো।
নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাসেল রানা বলেন, কমিটির তালিকায় এমন বড় ভুল করেছেন, তাদের দল থেকে বহিস্কার করা হোক।

সোনারগাঁ থানা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক নোবেল জানান, এমন গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকেও কেমন করে এত বড় একটি ভুল হয়? যে তাদের চোখে পরে না। কাজটি খুবই জঘন্য হয়েছে। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং সাংগঠনিক ভাবে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানান।

তবে, এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানা বিএনপির আহ্বায়ক আজহারুল ইসলাম মান্নানের মুঠোফোন যোগাযোগ করলে তাঁর এক রাজনৈতিক কর্মী ফোনটি উঠিয়ে বলেন, আজহারুল ইসলাম সাহেব মিটিংয়ে রয়েছে, তাই কথা বলতে পারবে না। ‘খালেদা জিয়া অমর হোক’ লেখাটি পিন্টিংয়ে ভূল ছিল। আমাদেরও চোখে পড়েছে, পরে সাথে সাথে সংশোধন করা হয়েছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − five =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর