শুক্রবার, এপ্রিল ৩০, ২০২১




আনভীরের পরিবারের ৮ সদস্যের দেশ ত্যাগ, আগাম জামিন বন্ধ

নিজস্ব সংবাদদাতা :

ঢাকার গুলশানে এক তরুণীকে ‘আত্মহত্যার প্ররোচনা’ দেয়ার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের স্ত্রী-সন্তানসহ পরিবারের ৮ সদস্য দেশ ছেড়েছেন। আনভীরের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার তিন দিনের মাথায় তারা দেশ ছাড়লেন।

বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) রাতে তারা দেশ ছেড়েছেন বলে বিমানবন্দরের একটি বিশ্বস্ত সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

সূত্রে আরও জানা যায়, তারা গত ২৭ এপ্রিল দেশের বাইরে যাওয়ার আবেদন করে একটি ফ্লাইটের অনুমোদন চান। তবে মামলা সংক্রান্ত জটিলতার কারণে (বৃহস্পতিবার) একটি চার্টার্ড ফ্লাইটের অনুমোদন দেয়া হয়। সেই সঙ্গে ইমিগ্রেশনকে জানিয়ে দেয়া হয় যাদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা আছে তারা ছাড়া অন্যরা যেতে পারবেন।

উল্লেখ্য, গত সোমবার রাতে গুলশানের একটি ভবনের ফ্ল্যাট থেকে মুনিয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারের পর বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরের বিরুদ্ধে ‘আত্মহত্যায় প্ররোচনার’ অভিযোগে মামলা করে এই তরুণীর পরিবার।

এজাহারে বলা হয়েছে, সায়েম সোবহান আনভীর ‘বিয়ের প্রলোভন’ দেখিয়ে মুনিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন। কিন্তু বিয়ে না করে তিনি উল্টো ‘হুমকি’ দিয়েছিলেন মুনিয়াকে।

‘আত্মহত্যায় প্ররোচনার’ মামলা করলেও মুনিয়ার বড় বোন মামলার বাদী নুসরাত জাহান বলে আসছেন, এটা আত্মহত্যা, নাকি হত্যা- সেটা তদন্তেই বেরিয়ে আসবে।

এজাহারে তিনি লিখেছেন, মুনিয়ার দেহ শোবার ঘরের সিলিং ফ্যান থেকে ওড়না প্যাঁচানো অবস্থায় ঝুলছিল। পা ‘খাটের উপর লাগানো এবং সামান্য বাঁকানো’ অবস্থায় ছিল।

অপরদিকে, এদিন সকালেই আদালতের দরজার সামনে স্বাক্ষর ও তারিখবিহীন একটি নোটিস টানানো হয়। সেখানে জানানো হয়, করোনা নিয়ন্ত্রণে চলা লকডাউনে আগাম জামিনের আবেদন পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত শুনানি করবে না আদালত। এদিকে নিয়মিত মামলার শুনানিতে সিনিয়র অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন আদালতের কার্যক্রমের শুরুতে আগাম জামিনের বিষয়টি উল্লেখ করলে ওই আগাম জামিন শুনানিটা কার্যতালিকায় ভুল করে এসেছে বলে জানান হাইকোর্ট। সেই সঙ্গে এখতিয়ার না থাকা সত্ত্বেও কার্যতালিকায় থাকা এ আগাম জামিন আবেদনের মামলা ডিলেট করে দেয়া হবে বলে মন্তব্য করেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন। ফলে আদালতকে এখতিয়ার না দেয়া পর্যন্ত হাইকোর্টে কোনো আগাম জামিন আবেদনের শুনানি করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 + thirteen =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর