বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১




ফতুল্লায় ঝাড়ু মিছিল করল সাংবাদিক মুন্নার বিরুদ্ধে

নারায়াণগঞ্জ প্রতিদিনঃ

মানষিক বিকারগ্রস্ত আখ্যা দিয়ে ফতুল্লায় মাহমুনুর রশীদ মুন্নার সৃষ্ট নানা অপরাধের কবল থেকে রেহাই পেতে বুধবার বিকেলে কতুবপুরে বিক্ষোভ ও ঝাড়ু মিছিল করছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। এ সময় মিছিলকারীরা মুন্নার শাস্তির দাবি করে শাহি মহল্লা, দেলপাড়া, চিতাশালের বিভিন্ন সড়কে প্রায় তিন শতাধিক নারী পুরুষ মিছিল করেন।

জানা যায়, অটো রিকশাচালক মো. দুলাল হোসেনের ছেলে মাহমুনুর রশীদ  মুন্না। দেলপাড়া কলেজ রোড এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকেন মুন্না। নিজেকে একটি অনলাইন পোর্টালের সম্পাদক পরিচয় দিয়ে স্থানীয় মহলে মাদক ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে প্রতিটি সেক্টর থেকে চাঁদাবাজী করার রয়েছে বিস্তর অভিযোগ।

রাজনৈতিক নেতা, জন প্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, মুদি দোকানদার, ক্লিনিক মালিকসহ সাধারন নিরীহ মানুষদেরকে ব্ল্যাক মেইলিং করে অর্থ আদায়ের হাজারো অভিযোগ তার বিরুদ্ধে। গত দুদিন পূর্বে  মুন্নার দ্বিতীয় স্ত্রী কে কেন্দ্র করে  একটি মারামারির ঘটনা ঘটে।

সে সময় প্রতি পক্ষের আঘাতে রক্তাক্ত জখম হয় মুন্না। সেই ঘটনাকে পুজিঁ করে মুন্না ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে মুন্নার বিরুদ্ধে একই দিনে জেসমীন নামক এক নারী বাদী হয়ে মারধর ও শ্লিতাহানীর অভিযোগ এনে ফতুল্লা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এর আগেও মুন্না ফতুল্লা থানা কম্পাউন্ডে তার বাবা কে বেদম প্রহার করে। যার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ  মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, কথিত সাংবাদিক মুন্না টার্গেট করে এলাকার বিভিন্ন স্থানীয় নেতাকর্মীদের। তাদের কাছে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে চাঁদাদাবী করে। যদি কেউ দাবীকৃত চাঁদা দিতে অপারগতা শিকার করে তাহলেই সেই সকল ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ফেসবুকে স্ট্যাটাসের মাধ্যমে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে।

ইতিপূর্বে বিভিন্ন স্থানে চাঁদাদাবী করে মারধরের শিকার হয়েছেন চাঁদাবাজ মুন্না। তার রোষানলে পড়ে অনেকেই অত্যাচার ও হয়রানীর শিকার হয়েছেন। তার অপসাংবাদিকতায় অতিষ্ঠ হয়ে এলাকার পুরুষ-মহিলারা একত্র হয়ে তার এ অপকর্মের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও ঝাড়ু মিছিল করেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen + 2 =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর