আগামী ৭ আগস্ট থেকে ১৮ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকরাও করোনা ভাইরাসের টিকার জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন।

সোমবার (২ আগষ্ট) করোনাভাইরাসের টিকার জন্য সরকারের সুরক্ষা অ্যাপ্লিকেশনে গিয়ে দেখা গেছে, কোভিড নিবন্ধন ফর্মে নাগরিক নিবন্ধনের ঘরটিতে ১৮ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকরাও নিবন্ধন করতে পারবেন।

শুরুতে ৫৫ বছর বয়সীদের টিকার জন্য নিবন্ধন করার অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল। পরে তা কমিয়ে ৪০ বছর করা হয়। তৃতীয় দফায় কমিয়ে ৩৫ বছর করা হয়। চতুর্থ দফায় তা আরও কমিয়ে ৩০ বছর এবং তা আবার কমিয়ে ২৫ বছর করা হয়।

তবে সবাইকে টিকার আওতায় আনতে ধারাবাহিকভাবে বয়সসীমা কমিয়ে ১৮ বছর করা হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সরকার ঘোষিত বয়সসীমা অনুযায়ী ১৮ বছর বয়সীরা আগামী ৭ আগষ্ট থেকে করোনা ভাইরাসের টিকার জন্য নিবন্ধন করতে পারবে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ জানান, ১৮ বছরের বয়সের উপরের যারা নিবন্ধন করবেন তাদের টিকা দান প্রসেসটা একই। আমরা নারায়ণগঞ্জের ৩৯ টি ইউনিয়নে ১৮০০শ করে মোট-৭০হাজার ২০০শত টিকা প্রদান করবো। এছাড়া সিটি কর্পোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ডে ৬০০শ করে ৬ দিনে মোট-৯৭ হাজার ২০০শত টিকা প্রদান করা হবে।

অন্যদিকে মহামারি মোকাবিলায় সম্মুখসারির কর্মী, বেশ কিছু পেশাজীবী শ্রেণি, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী, প্রবাসী কর্মী এবং অগ্রাধিকার তালিকায় থাকা ব্যক্তিরা নির্ধারিত বয়সসীমার শর্তের বাইরে থেকেও নিবন্ধনের সুযোগ পাচ্ছেন। যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই, তারা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি কাছ থেকে প্রত্যয়নপত্র নিয়ে স্থানীয় টিকাদান কেন্দ্রে গিয়ে টিকা নিতে পারবেন।