বৃহস্পতিবার, জুন ৩, ২০২১




টক অব দ্যা সিটিতে পরিণত কামরুল ইসলাম বাবু

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:
২০২১ সালের শেষ দিকে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। কোভিড-১৯ এর কারণে দেশীয় রাজনীতিতে কিংবা নির্বাচনে জোয়ার না থাকলেও নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে কিছু দিন যাবত গুঞ্জন চলে কামরুল ইসলাম বাবু নামের এক মধ্য বয়সী ব্যবসায়ীকে ঘিরে। শহরের নানা প্রান্তে সাটানো হয়েছে পোস্টার, ব্যানার ও ফ্যাস্টুন। ঈদ উল ফিতর থেকে একটু ব্যতিক্রমি আদলে এমন প্রচারণা চালাচ্ছেন নগরীর এই মুহূর্তের আলোচিত মুখ কামরুল ইসলাম বাবু। নিজেকে অতি সাধারণ পরিচয় দিয়ে তিনি যেভাবেই হোক ইতোমধ্যে নিজেকে টক অব দ্য সিটিতে পরিণত করেছেন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এর কোনো ধরনের পদ পদবীতে না থাকলেও দলটির সমর্থন প্রত্যাশা করেছেন তিনি।
গতকাল (২ জুন) নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে নগরবাসীকে কামরুল ইসলাম বাবু বলেছেন, উন্নয়ন, নাগরিক সেবা ও রাজস্ব আদায়— এই তিনটি নীতির ওপর ভর করে আমি বদলে দিতে চাই নারায়ণগঞ্জ সিটিকে। মৌলিক এমন তিনটি নীতির সাথে থাকবে যৌগিক পর্যায়েরও তিনটি নীতি।
তার বক্তব্যে তিনি বলেছেন, সারা পৃথিবীর স্থানীয় সরকার সম্পর্কে মনিষীরা নানা মত প্রদান করেছেন। যেমন, কেহ বলছেন, হোয়েন ইউ আর ইন লোকাল গভর্নমেন্ট, ইউ আর অন দ্য গ্রাউন্ড—এন্ড ইউ আর লুকিং ইনটু দ্য আইজ এন্ড হার্টস অফ দ্য পিপল ইউ আর দেয়ার টু সারভ। ইট টিচেস ইউ টু লিসেন; ইট টিচেস ইউ টু বি এক্সপ্যান্সিভ ইন দ্য পিপল উইথ হোম ইউ টক টু, এন্ড আই থিংক দ্যাট এঙ্গেজমেন্ট গিভস ইউ পলিটিক্যাল জাজমেন্ট। অর্থাৎ, বাংলায় বললে, “আপনি যখন স্থানীয় সরকারে থাকবেন তখন আপনি মাটিতে থাকবেন এবং আপনি সেখানে উপস্থিত লোকদের চোখ এবং হৃদয়ের সন্ধান করছেন। এটি আপনাকে শুনতে শেখায়; আপনি যাদের সাথে কথা বলছেন তাদের মধ্যে এটি আপনাকে বিস্তৃত হতে শেখায় এবং আমি মনে করি যে এই ব্যস্ততা আপনাকে রাজনৈতিক রায় দেয়।“
আবার কেহ বলছেন, ইন লোক্যাল গভর্নমেন্ট, ইটস ভেরি ক্লিয়ার টু ইউর কাস্টমারস— ইউর সিটিজেন সরহোয়েদার অর নট ইউ আর ডেলিভারিং— আইদার দ্যাট পথলি গেটস ফিল্ড ইন, অর ইট ডাসেন্ট — দ্য রেজাল্টস আর ভেরি মাচ অন ডিসপ্লেন, এন্ড দ্যাট ক্রিয়েটস এ ভেরি হেলদি প্রেসার টু ইনোভেট ! অর্থাৎ,” স্থানীয় সরকারে, আপনার গ্রাহকদের কাছে – আপনার নাগরিকদের – আপনি বিতরণ করছেন কিনা তা খুব স্পষ্ট। হয় সেই গর্ত ভরাট হয়ে যায়, বা হয় না। ফলাফলগুলি প্রদর্শনে খুব বেশি এবং এটি উদ্ভাবনের জন্য খুব স্বাস্থ্যকর চাপ তৈরি করে।“
অন্যদিকে দার্শনিক ঈশ্বরমিত্র বলছেন, “ মানচিত্র ভিত্তিক শাসন ব্যবস্থায় আঞ্চলিক উন্নয়নে জনগোষ্ঠী বরাবরের মত এখানেও আবেদনকারী। কিন্তু, তাঁর নাগরিক অধিকার চাইবার যোগ্যতা যেমন আছে কিনা দেখতে হবে, অন্যদিকে রাষ্ট্র কর্তৃক বিশেষ ব্যবস্থায় যখন নগর পরিকল্পনার অন্তর্ভুক্ত হয়ে তুমি একটি সংস্থা কিংবা কর্পোরেশন এর দরজা তৈয়ার করেছো, ধাক্কা দিয়ে বসতেও পেরেছো— তখন নাগরিক তৈরি ও সেবা নিশ্চিত করেই জীর্ণ চেয়ারে বসে শহরটাকে শ্রেষ্ঠ কর, আধুনিক কর।“
এসময় সংগঠনের সভাপিত সহ নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight − two =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর