বৃহস্পতিবার, মার্চ ৪, ২০২১




বন্দরে ফসলী জমির মাটি ইটভাটায় জলাভূমিতে পরিনত

বন্দর প্রতিনিধি:

বন্দর ধামগড় ইউপি কাজীপাড়া হালুয়াপাড়া শ্রীরামপুর, এবং মুছাপুর ইউপি ফনকুল, বারপাড়া, শাসনেরবাগ, মদনপুর ইউপি বাগদোবাড়ীয়া, জাঙ্গল, কেওঢালা, কাইনলীভিটা, এলাকার দু’ফসলী জমির মাটি ইট ভাটায় কেটে নেয়ায় সেখানে ফসলি জমি সহ জলাভূমিতে পরিনত এবং পরিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতি হচ্ছে।

কিছু অসাধু ভূমিদস্যুদের ছত্রছায়ায় প্রশাসন নিরব ভূমিকা পালন করছে। অথচ গত কয়েক বছর পূর্বে ও এই জমিতে সোনালী ধান সহ সরিষা চাষ করা হতো। কৃষক তাদের পছন্দমত ধান বীজ বপন করে গোলা ভরে ধান তুলতেন। সেই সাথে হাসিমুখে নতুন ধানের আমেজে পরিবারের সবার মুখে আনন্দের বন্যা বয়ে যেত। অথচ এক শ্রেনীর ভূমিদস্যুদের কারনে দু’ফসলী জমির মাটি ইট ভাটায় বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। ফলে প্রশাসনের কিছু অসাধু লোকদের বখড়া দিয়ে রাতের আধারে উজাড় করে নিচ্ছে দু’ফসলী জমির মাটি। জমিতে পা রাখলে মনেই হয় না যে এক সময় এখানে ধান চাষ করা হতো। অথচ এসকল এলাকার জমিতে ধান চাষ করতে ২০টির মত ইরিস্কীম দিয়ে পানি দেয়া হতো। আর এখন নামে মাত্র একটি স্কীম থাকলে ও কৃষকেরা প্রয়োজন মত পানি পাচ্ছেনা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেক কৃষক ও এলাকাবাসি জানায় যে ভূমিদস্যুদের রয়েছে শক্তিশালী সিন্ডিকেট। তাছাড়া তাদের অর্থের যোগান দিয়ে থাকে প্রভাবশালী মহল। অনেকে আবার জানায় কতিপয় ক্ষমতাশীল জনপ্রতিনিধি ও তাদের সাথে জড়িত। ফলে তাদের বিরুদ্ধে মুখ খুলে অথবা প্রতিবাদ করলেই তাদের হত্যাসহ মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি প্রদান করে। এই ইট ভাটায় গুলুতে রাতের আধারে জুয়া মাদক ব্যবসা সহ বিভিন্ন অপরাধ মূলক কাজ হয় বলে এলাকাবাসির সূত্রে মতে জানাজায়। নারায়নগঞ্জ বন্দর ছোট একটি উপজেলায় প্রায় ৫০টির মত ইট ভাটা রয়েছে, ইটভাটার ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে আমাদের কারও অজানা নেই। ঢাকা থেকে সামান্য দূরে যদি নারায়নগঞ্জ বন্দরে দিকে যাই, তাহলে দেখতে পাব ওখানকার আকাশ প্রায় কালো ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন থাকে ইটভাটার ধোঁয়ায় গাছ, ফলমূল ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়। মানুষ সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়। কয়লা থেকে ভীষণ ক্ষতিকর কার্বন মনোক্সাইড নির্গত হয়।

এ ব্যাপারে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন সঠিক তদন্তে সাপেক্ষে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান, নিরিহ কৃষক এবং এলাকাবাসি জোর দাবি এ অবস্থা নিরসনের জন্য প্রশাসনের উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × five =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর