রবিবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২০




আইভী-শামীম সংঘর্ষের কূলকিনারা নেই

নারায়ণগঞ্জ প্রতিদিন :

পুলিশের করা মামলায় কাউকে শনাক্ত করতে না পেরে চূড়ান্ত প্রতিবেদন। আইভীর মামলার তদন্ত শেষ হয়নি তিন বছরে। অস্ত্রধারী নিয়াজুলের বিরুদ্ধেও নেয়া হয়নি কোনো ব্যবস্থা।

নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার উচ্ছেদ দিয়ে মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী ও সংসদ সদস্য শামীম ওসমান সমর্থকদের মধ্যে আলোচিত সংঘর্ষের ঘটনায় শেষ পর্যন্ত কারও বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

দুই পক্ষের সংঘর্ষে আইভীসহ অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হওয়ার পর যে দুটি মামলা হয়েছিল, তার একটিতে কাউকে শনাক্ত করতে না পেরে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ। অন্য একটি মামলার তদন্ত এখনও শেষ করা যায়নি।

ওই সংঘর্ষের সময় অস্ত্র হাতে যুবলীগ নেতার যে ছবি এসেছিল গণমাধ্যমে, সেটির লাইসেন্সের মেয়াদ পার হয়ে গিয়েছিল। সংঘর্ষে সে অস্ত্র ব্যবহারের ঘটনায় তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে ফুটপাতে হকার বসানোকে কেন্দ্র করে আইভী ও শামীম সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন যে তদন্ত কমিটি করেছিল, সেটির প্রতিবেদন আর জমা দেয়াই হয়নি। অথচ সরকারের ঘোষণা ছিল, প্রতিবেদন দেখে ব্যবস্থা নেয়ার।

তখন জেলা প্রশাসন তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল। দফায় দফায় সময় বাড়ানোর হয় প্রতিবেদন জমা দেয়ার। পরে এক সময় কমিটির কর্মকর্তারা বদলি হয়ে যান অন্য জেলায়।

পাল্টাপাল্টি অভিযোগ ও মামলা

ঘটনার পরদিন ১৭ জানুয়ারি মেয়র আইভীর ভাই ও সমর্থকসহ ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় অস্ত্র ছিনতাই ও হত্যাচেষ্টার লিখিত অভিযোগ দেন যুবলীগ নেতা নিয়াজুল ইসলাম, যার হাতে অস্ত্রসহ ছবি প্রকাশ হয় গণমাধ্যমে।

অন্যদিকে আইভীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে ২২ জানুয়ারি নিয়াজুলসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও এক হাজার জনকে আসামি করে থানায় অভিযোগ দেন সিটি করপোরেশনের আইন কর্মকর্তা জিএম সাত্তার।

তবে পুলিশ অভিযোগ দুটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) হিসেবে রেকর্ড করে। ২২ মাস ১৮ দিন পর ২০১৯ সালের ৪ ডিসেম্বর উচ্চ আদালতের নির্দেশে সদর মডেল থানায় দেয়া অভিযোগটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়।

মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা, জখম, নাশকতা, ভাঙচুরসহ অরাজকতার অভিযোগ আনা হয়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine + twelve =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর